ক্রাইম রাজ্য

রামপুরহাটে শ্মশানের জমি দখলের অভিযোগ

সব্যসাচী মুখার্জি, নজরে বাংলা, রামপুরহাট (বীরভূম) : শ্মশানের জায়গা দখলের অভিযোগ উঠল এক পরিবারের বিরুদ্ধে। রামপুরহাট মহকুমা শাসক অবৈধ দখলদারি উচ্ছেদের নির্দেশ দিলেও ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিক গড়িমসি করছে বলে অভিযোগ। এর সুযোগে শ্মশানের জায়গা দখল হয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন জনৈক উত্তীয় মুখোপাধ্যায়। তিনি ওই জায়গার উপর ১৪৪ ধারার আবেদন করেন। সেই আবেদনের ভিত্তিতে মঙ্গলবার তদন্ত করেন রেভিনিউ ইনস্পেক্টর।
৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে বীরভূমের রামপুরহাট মনসুবার কাছে শ্মশানের জায়গা রয়েছে। ১৪৪ ধারা চেয়ে আবেদনকারী উত্তীয় মুখোপাধ্যায় বলেন, “শ্রীকৃষ্ণপুর পাকুরিয়া মৌজায়, ৮৩৯ দাগ নম্বরে ৬৩ শতক জায়গা শ্মশানের নামে রয়েছে। সমস্ত রেকর্ডে ওই জায়গা শ্মশানের বলে উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু কোন এক সময় শ্রীকৃষ্ণপুর পাকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা মহম্মদ আরাফত এবং মহম্মদ ইদরাকের নামে দুই ভাই ২৪ শতক জায়গা রেকর্ড করা হয়। সেই জায়গায় প্রথমে একটি গাড়ি মেরামতের গ্যারেজ করা হয়। পরে সেখানে বাড়ি নির্মাণের জন্য কাজ শুরু করে ওই পরিবার। ওই কাজ বন্ধের আবেদন জানান উত্তীয়বাবু।

তিনি বলেন, “প্রশাসনের সর্বত্র অভিযোগ জানানো হয়েছিল। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে জেলা শাসক উভয়পক্ষকে ডেকে কাগজপত্র দেখাতে বলেন। কিন্তু দখলকারীরা বৈধ কাগজ দেখাতে পারেনি। ফলে অবৈধ নির্মাণ উচ্ছেদের নির্দেশ দেন মহকুমা শাসক। তারপরও নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাওয়ায় ১৪৪ ধারা জারির আবেদন করা হয়”। যদিও মহম্মদ আরাফত বলেন, “আমাদের পূর্বপুরুষকে এই জায়গা দিয়ে গিয়েছিলেন তৎকালীন রাজা। সেই বলেই আমরা নিজেদের জায়গায় গ্যারেজ করেছি। এখন সীমানা প্রাচীর দিতে গেলে বাধার সৃষ্টি করে কিছু মানুষ। আমরাও আইনের আশ্রয় নেব”।

NB

Leave a Reply