দেশ

ঝুঁকি নিতে নারাজ নরেন্দ্র মোদি, ফের বারাণসী থেকেই ভোটের লড়াই

নজরে বাংলা ডেক্স, নিউদিল্লিঃ ফের বারাণসীতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন মোদী। জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বারাণসী থেকেই লোকসভা ভোটে দাঁড়াবেন নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদি। কারণটা সহজেই অনুমেয়, এবারের লড়াই বেশ কঠিন। তাই কিছু অপ্রীতিকর সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে বিজেপি-র কেন্দ্রীয় কমিটি। প্রবীণদের একেবারে ছেঁটে ফেলার ঝুঁকিও নিত পারছেন না অমিত শাহরা। গতবারের জয়ী প্রার্থী বেশ কিছু সংসদকেই এবার টিকিট দেবে না বিজেপি।

২০১৯ এ বারাণসী থেকেই লড়াই করছেন প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদি। এমনই সিদ্ধান্ত নিল বিজেপির সংসদীয় বোর্ড। ২০১৪ সালে যাঁর বিজয়রথ শুরু হয়েছিল এখান থেকেই। পাঁচ বছর পর ফের সেই বারাণসীতেই ফিরছেন তিনি। গত কয়েক মাসে বেশ কয়েক বার বারাণসী সফর করেছেন নরেন্দ্র মোদি। প্রতিবারই একগুচ্ছ নতুন প্রকল্পেরও ঘোষণা করেন। তখনই স্পষ্ট হচ্ছিল, পুরী বা অন্য কোথাও নয়, ফের বারাণসীতেই ফিরছেন মোদি। প্রধানমন্ত্রীর কেন্দ্র বদলের ঝুঁকি নিতে চায়নি বিজেপি নেতৃত্ব। দলের একটি অংশ দাবি তুলেছিল ৭৫ বছর বা তাঁর বেশি বয়স্কদের এবার টিকিট না দেওয়ার। সূত্রের খবর, তাতে সায় ছিল নরেন্দ্র মোদি – অমিত শাহেরও। তবে আদতে কিছুটা রক্ষণাত্মক ভঙ্গিতেই এবার মার্গদর্শন মন্ডলীর প্রবীণ-শক্তিকে কাজে লাগাতে চায় গেরুয়া শিবির৷
দেখা গেছে এই নিয়ম হলে প্রার্থী হতে পারতেন না মার্গদর্শন মন্ডলীর লালকৃষ্ণ আদবানি, মুরলী মনোহর যোশীদের মতো প্রবীণ নেতারা। এতে দলে ভুল বার্তা যাওয়ার আশঙ্কা। প্রবীণদের অসম্মান করার অভিযোগও উঠত। আদবানি, যোশিরা প্রার্থী হবেন কিনা, তা তাঁদের উপরই ছাড়া হবে৷ আদবানি-সহ পাঁচনেতার ক্ষেত্রে এই ছাড় দেওয়া হবে ৷ এঁদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে নির্বাচন কমিটি৷ কয়েকদিন আগেই দলীয় সাংসদদের কাজের খতিয়ান পেশ করতে নির্দেশ দিয়েছিল বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। সেই রিপোর্ট বিশেষজ্ঞ সংস্থাকে দিয়ে পরীক্ষা করানো হয়। সূত্রের খবর, ফল যা বেরিয়েছে, তাতে চটে লাল অমিত শাহরা। তাই স্থির হয়েছে. গতবারের জয়ী বেশ কিছু সাংসদকে টিকিট নয়৷ নতুন মুখ তুলে আনায় গুরুত্ব৷ স্থানীয় স্তরের যুবনেতাদের প্রার্থী করা হবে৷

NB

Leave a Reply